শনিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২০, ০১:৫৯ অপরাহ্ন

শিরোনাম :
চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি আলমগীর হোসেন শুভ জম্মদিন আজ ইসলামী যুব আন্দোলন (চট্টগ্রাম) বাঁশখালী উপজেলার বাহারছড় ইউনিয়নে দাওয়াতি সভা ও কমিটি গঠন সম্পন্ন মানিকগঞ্জের দৌলতপুরে সড়ক দূর্ঘটনায় টাঙ্গাইল নাগরপুরের একই পরিবারের ৫ জন সহ ৭ জন নিহত যুব আন্দোলন ফটিকছড়ি থানা সম্মেলন সম্পন্ন জাতিকে ধর্মহীন করার লক্ষ্যে প্রণীত শিক্ষানীতি বাস্তবায়ন করতে দেয়া হবে না টাঙ্গাইলে ছাত্র জমিয়তের আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে মিরসরাইয়ে ছাত্রলীগের বিক্ষোভ মিছিল ‘বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য স্থাপনে সকল ষড়যন্ত্র রুখে দিবে ছাত্রলীগ’ ঠাকুরগাঁওয়ে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের জমি দখল করতে গিয়ে মারপিট, গুরুতর আহত ৩ জন ঠাকুরগাঁওয়ে ইভটিজিং করায় ৬ মাসের কারাদণ্ড লক্ষ্মীপুরে জায়গা জমি নিয়ে দুই পক্ষের সংঘর্ষ ।
শ্রীপুরে মেধাবী শিক্ষার্থী শিবলুর সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

শ্রীপুরে মেধাবী শিক্ষার্থী শিবলুর সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

ইলিয়াস ঢালী বিশেষ প্রতিনিধি

 

শারীরিক ভাবে অক্ষম স্বামী ও দুইজন সন্তান নিয়ে একটি মাটির ঘরে বসবাস কুলসুম বেগমের।
চার সন্তানের মধ্যে দুইজনকে বিয়ে দেওয়ার পর তারা অন্যত্র থাকছে।

হতদরিদ্র পরিবারে জন্ম নেয়া শিবলু (১৪) ৮ম শ্রেণিতে লেখাপড়ার পাশাপাশি মানুষের বাড়িতে কাজ করতো, কাজ করে নিজের পড়াশোনা সহ বাড়ির বিভিন্ন চাহিদা মেটাতো সে।
তার ছোট ভাই শাহাদাত (৬)।

করোনা মহামারির কারণে বিদ্যালয় বন্ধ থাকায় কাজ নিয়ছিল পাশের বাড়ীতে।

সেই বাড়ীতেই গত [১৪ সেপ্টেম্বর ২০২০] সন্ধ্যায় তার লাশ উদ্ধার করে শ্রীপুর থানার এসআই মহসিন।

এ ঘটনার পরপরই বাড়ীর লোকজন গা ঢাকা দেয়।পুলিশ লাশ ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করন।

এ ঘটনাটি এলাকায় বিদ্যুৎপষ্ট হিসেবে প্রচার হয়। এমনকি থানায় অপমত্যু হিসেবে পুলিশ একটি মামলা রেকর্ড করে। যদিও প্রথম থেকেই কিশোরের পরিবারের অভিযোগ ছিল এটি একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড।
ঘটনার পরই কয়েকজনকে অভিযুুক্ত করে কিশোরের পরিবার শ্রীপুর থানায় অভিযোগ দিলেও পুলিশ তা মামলা হিসেব রুজু করেনি। এরপর গাজীপুর আদালতে মামলা নম্বর ১০৫৮ দায়ের করেন কুলসুম বেগম।

কিশোর সাদিকুল ইসলাম শিবলু গাজীপুর জেলার শ্রীপুর উপজেলার টেংরা গ্রামের রমজান আলীর সন্তান ও টেংরা নসর উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

ওই শিক্ষার্থী মৃত্যুর ঘটনায় অভিযুক্তরা হলেন, টেংরা গ্রামের মৃত ছফির উদ্দিনের সন্তান রওশন আরা (৪২), আব্দুর রশিদের সন্তান সোহেল মিয়া(৩২), রহিম মিয়ার স্ত্রী সাবেক ওয়ার্ড সদস্য রুনা(৪৫) ও সাহাব উদ্দিনের সন্তান নাসির উদ্দিন(৩৫)।

এ ঘটনা সুষ্ঠু তদন্তের প্রয়োজনে কবর থেকে লাশ উঠিয়ে পূনরায় তদন্ত ও বিচারের দাবি জানিয়ে বৃহস্পতিবার [১৯ নভেম্বর ২০২০] দুপুরে একটি মানববন্ধন করেন ভুক্তভোগী পরিবারসহ এলাকাবাসী।

ওই মানববন্ধনে শিবলুর মা কুলসুম বেগম জানান, আমার সংসারে উপার্জন করার মতো শিবলু ছাড়া আর কেউ নেই। আমার সোনার টুকরা ছেলে রওশন আরার বাড়িতে কাজ করতো। আমার ছেলেকে তারা মারার দুইদিন আগেও আমাকে বলছিল, রওশন আরা নেশা করে, সিগারেট খায়৷ আমি আর ওই বাড়িতে কাজ করবো না। তার লাশ নিয়ে যাওয়ার সময়ও তার শরীরে মারধরের দাগ ছিল। তখন থানায় মামলা করতে চাইছিলাম, পুলিশ মামলা নেয়নি। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে লেখা হয়েছে বৈদ্যুতিক শট খেয়ে মারা গেছে। তাদের টাকা আছে, তারা ওই সময় এক লাখ টাকা দিয়ে ঘটনা মীমাংসা করতে চেয়েছে। আমাদের টাকা চাই না, আমার ছেলের হত্যার ঘটনার বিচার চাই।

এ ব্যাপারে প্রধান অভিযুক্ত রওশন আরা জানিয়েছেন, শিবলু আমাদের বাড়িতে মাঝেমধ্যে কাজ করতো। ওইদিন সে বৃষ্টিতে ভিজে সে আমাদের বাড়িতে আসছিল, পরে সন্ধ্যার সময় কারেন্ট শক খেয়ে মৃত্যুর ঘটনা শুনি। কিভাবে ? বৈদ্যুতিক কোন ত্রুটির কারণে এ ঘটনা ঘটেছে ? এসব প্রশ্নের কোনও উত্তর দিতে পারেননি তিনি।

এ ব্যাপারে শ্রীপুর থানার এসআই মহসিন যোগফলকে জানিয়েছেন, পোস্টমর্টে রিপোর্টে যা আছে তাই, এর বাইরে আমার কিছু বলার নেই, আমি একটু ব্যস্ত আছি, পরে বিস্তারিত কথা বলি।

স্মরণীয়: এ ঘটনায় শ্রীপুর থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছিল, কিন্তু ভুক্তভোগীর পরিবার ওই মামলা প্রসঙ্গে কিছুই জানেন না। তারা বিচার না পেয়ে আদালতে মামলা করেছেন

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




যোগাযোগব্যবস্থা : +8801797887885 , +966577834342 Email :voiceofinsaf.office@gmail.com
Desing & Developed BY NewsRush